অ্যালোভেরার গুণাগুণ ও উপকারিতা

আপনার সৌন্দর্যের শেষ বা একেবারে শেষ চুড়ায় পৌছাতে চাইলে একমাত্র পন্থা হতে পারে এই প্রাকৃতিক উপাদানটি । অ্যালোভেরা শুধু ত্বকের উজ্জ্বলতাই বৃদ্ধিতে সহায়তা করে না  এটি সেই সাথে ত্বকের নানা ধরনের সমস্যা রোধ করে। সেই সঙ্গে জেনে রাখা ভালো যে বিভিন্ন ধরনের ত্বকের জন্য বিভিন্ন ভাবে ব্যবহার করা যেতে পারে এই ঘৃতকুমারীকে।

অ্যালোভেরা কী

শরীর ও ত্বক সতেজ রাখতে অ্যালোভেরার কোন বিকল্প নেই । অ্যালোভেরা বিশ্বের সবার কাছে খুবই পরিচিত একটি উদ্ভিদ । অ্যালোভেরাকে বাংলায় ঘৃতকুমারী বলা হয়ে থাকে কিন্তু এই প্রাকৃতিক উদ্ভিদটিকে সারা পৃথিবীর মানুষ অ্যালোভেরা নামেই চেনে। অ্যালোভেরা বিভিন্নভাবে রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য  করে ।

এই প্রাকৃতিক উদ্ভিদটিতে অধিক মাত্রায় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকার ফলে বিউটি প্রডাক্ট হিসেবে খুবই জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। শুধু তাই নয় এতে রয়েছে পরিসেকারাইড, লেকটিন এবং মেনাস যা নানা ভাবে ত্বকের উপকার করে। অ্যালোভেরা একটি প্রাকৃতিক গুণ সম্পন্ন ভেষজ উদ্ভিদ। এর গুণের কোন সীমা নেই। এই অ্যালোভেরা যে কোন স্থানে সহজলভ্য। এইটি এমনিতেও খাওয়া যায় আবার জুস তৈরি করেও খাওয়া যায় এবং ত্বকের প্রদেহ প্রতিষেধক হিসেবেও ব্যবহার করা যায়।

অ্যালোভেরার অসাধারণ গুণাগুণ

অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারীর মধ্যে  রয়েছে অধিক পরিমাণে প্রাকৃতিক উপাদান, যা মানবদেহের জন্য খুবই প্রযোজনীয় এবং উপকারী। এগুলোর মধ্যে উল্লেখ্য হলো: 

  • ক্যালসিয়াম
  • পটাসিয়াম
  • সোডিয়াম
  • ম্যাঙ্গানিজ
  • আয়রণ
  • জিংক
  • ফলিক অ্যাসিড
  • অ্যামিনো অ্যাসিড
  •  ভিটামিন এ, বি২ ও বি৬ ইত্যাদি । 

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি

অ্যালেভেরা হচ্ছে অ্যান্টি ম্যাইকোরিয়াল এবং অ্যান্টি ফাঙ্গাল উপাদান সমৃহ একটি বৃক্ষ বা গাছ । অ্যালোভেরার জুস প্রতিদিন নিয়মিত পান করলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি হয় এবং শরীর সুস্থ্য রাখতে সহায়তা করে । এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন রয়েছে । 

ক্যান্সার প্রতিরোধ

ক্যান্সার একটি মারাত্বক দূরারোগ্য রোগ। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এবং যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক আন্তর্জাতিক ইমিনোফর্মাকোজি জার্নাল প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে অ্যালোভেরাতে রয়েছে অ্যালো ইমোডিন যা স্তন ক্যান্সার ছড়ানো থেকে রক্ষা করে । এছাড়া অন্যান্য ক্যান্সার ও নানা ধরনের রোগ প্রতিরোধে অ্যালোভেরা অনস্বীকার্য ভূমিকা পালন করে । অ্যালোভেরা ওষুধ হিসেবেও ব্যবহার হয় । 

মাংসপেশী ও জয়েন্টর ব্যথা

অ্যালোভেরা জেল খুবই উপকারি। অ্যালোভেরা জেল যে কোন ধরনের বাতের ব্যথা সারাতে সহায়তা করে। অ্যালোভেরা মাংসপেশী বা অস্থিসন্ধিতে ব্যথা অনুভব হলে সে স্থানে যদি এই অ্যালোভেরার জেল লাগানো যায় তাহলে অনেকটা আরাম পাওয়া যায়। জেলটি ওষুধ হিসাবে ব্যথা যুক্ত স্থানে দারুন কাজ করে । 

হজম শক্তি বৃদ্ধি

অ্যালোভেরার জুস হজম শক্তি বৃদ্ধিতে বিশেষ ভুমিকা রাখে। অ্যালোভেরার জুস গ্যাসের সমস্যা ও ডায়রিয়া দূর করতে সাহায্য করে ও অ্যালোভেরার অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি উপদান সমূহ পাকস্থলী ঠান্ডা রাখে এবং গ্যাসের সমস্যা সমাধান করে। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এক গ্লাস পানির সাথে অ্যালোভেরা মিশে খেলে অত্যাধিক উপকার পাওয়া যায় । 

ওজন কমাতে

ওজন নিয়ন্ত্রণে অ্যালোভেরা জুস অধিক কার্যকারী। নিয়মিত অ্যালোভেরা জুস পান করলে শরীরের অতিরিক্ত মেদ ও চর্বি দূর হয়। বলতে গেলে এর কোন তুলনা নেই । এটি কোন পার্শ প্রতিক্রিয়া ছাড়াই ওজন এবং মেদ কমাতে সহায়তা করে ।  

ডায়াবেটিস

নিয়মিত অ্যালোভেরা জুস পান করলে রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ এ থাকে। তাই নিয়মিত অ্যালোভেরার জুস  পান করে সহজেই ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব। এজন্য ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এটি উপকারী উদ্ভিদ। এটি প্রাকৃতিক গুণসম্পন্ন ভেষজ উদ্ভিদ । যার কারণে এটিতে কোন পার্শ প্রতিক্রিয়া নেই

রূপচর্চায় অ্যালোভেরার উপকারীতা

রূপর্চ্চা কম বেশি সবাই করে । রূপর্চ্চাতেও অ্যালোভেরা অবদানের কোন কমতি নেই । এটি স্বাস্থ্যের জন্য যতটা উপকরী; ত্বকের যত্নে তার থেকেও অধিক উপকারী । তাছাড়া বিভিন্ন তেল সমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করার ফলে ত্বক তৈলাক্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে আর অ্যালোভেরা ব্যবহার করলে ত্বক তৈলাক্ত হবার সম্ভাবনা থাকে না।

ত্বকের যত্ন

প্রাচীনকাল থেকেই অ্যালোভেরা ত্বকের যত্নে ব্যবহার করা হয়। অ্যালোভেরার অ্যান্টি-ইনফ্লামেনটরী উপাদান ত্বকের ইনফেকশন দূর করে ব্রণ হওয়ার প্রবণতা কমিয়ে দেয় এবং ত্বককে উজ্জ্বল করে।  এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাশাপাশি ত্বককে মসৃণ করে ও বয়সের ছাপ দূর করে । 

সুন্দর চুল

সুন্দর চুল পেতে কে না চায়। সুন্দর চুল পেতে অ্যালোভেরার জেল অনেক কার্যকারী এবং এর জুড়ি মেলা খুবই কঠিন । অ্যালোভেরা জেল মাথার খুশকি দূর করতেে এবং চুল ঝলমলে করতে অতুনীয় ভূমিকা পালন করে। 

রোগ-প্রতিরোধের  ক্ষেত্রে

নিয়মিত অ্যালোভেরার জুস পান করলে হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়। এছাড়াও ক্যান্সারের মতো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি অন্যান্য রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। এছাড়াও অ্যালোভেরা জেল নিয়মিত ভাবে ত্বককে লাগালে অস্থীসন্ধি বা মাংসপেশীর ব্যথা কমে যেতে সাহায্য করে।

সর্বোপরি, অ্যালোভেরা চুল ও ত্বকের জন্য অধিক উপকারী, এর ময়েশ্চারাইজ এবং প্রপাটির জন্য অনেক কার্যকর। আমাদের চুলের বৃদ্ধি হতে সাহায্য করে এবং স্বাস্থ্যের জন্যও অধিক উপকারী। অ্যালোভেরা হার্ট ভালো রাখতে সাহায্য করে। মুখের দূর্গন্ধ দূর ও হজম শক্তি বাড়াতে সহায়তা করে। এছাড়াও অ্যালোভেরা খাদ্য নালী পরিপাক যন্ত্রকে সুস্থ্য রাখতে সহায়যতা করে।

Leave a Comment

Recommended
স্পোর্টস হলো সুস্থ বিনোদনের একটি অন্যতম মাধ্যম। এতে…
Cresta Posts Box by CP